হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর শ্রেষ্ঠত্ব ও মাহাত্ম্য প্রশ্নাতীত

Front Cover
Ahmadiyya Muslim Jama'at, Bangladesh. - 11 pages
0 Reviews

 নিখিল বিশ্ব আহমদীয়া মুসলিম জামাতের বর্তমান ইমাম হযরত মির্যা মসরূর আহমদ খলীফাতুল মসীহ্ আল্ খামেস (আই.) সূরা আহযাবের ৫৭ ও ৫৮ নাম্বার আয়াত পাঠ করে বলেন; আজকাল ইসলাম বিদ্বেষীদের চরম ভয়ানক ও হীন কর্মকান্ডের কারণে পুরো মুসলিম বিশ্বে প্রতিবাদের ঝর বয়ে যাচ্ছে। মুসলমানরা মহানবী (সা.)-এর সত্যিকার মর্যাদা না বুঝলেও তাঁর সম্মান রক্ষায় প্রাণ পর্যন্ত দিতে প্রস্তুত। আজ মহানবী (সা.)-কে নিয়ে যে নোংরা চলচ্চিত্র বানানো হয়েছে- এতে তাঁর চরম অবমাননা ও অসম্মান করা হয়েছে। অথচ তিনি (সা.) ছিলেন মানবদরদী রসূল। তিনি ছিলেন ধৈর্যের মূর্তিমান রূপ। নিজের সর্বস্ব বিলিয়ে দিয়ে তিনি মানুষের মঙ্গল ও কল্যাণ কামনা করেছেন। জীবনের প্রত্যেক ধাপে তিনি সুমহান আদর্শ প্রতিষ্ঠা করেছেন। অন্যের সম্মান ও অন্য ধর্মের সম্মান করা ছিল তাঁর অনন্য বৈশিষ্ট্য। এমনকি তাঁর অবস্থা দেখে আল্লাহ্ তা’লা স্বয়ং বলেছেন; তাঁরা মু’মিন হচ্ছে না বলে তুমি কি নিজ প্রাণ বিনাশ করে ফেলবে।; কাজেই এমন অবমাননাকর ফিল্ম দেখে একজন মুসলমানের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হওয়াই স্বাভাবিক আর এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি কষ্ট পায় আহমদী মুসলমানরা। কিন্তু প্রতিবাদের নামে কোনভাবেই ভাঙচুর বা অগ্নিসংযোগ করে দেশের শান্তি শৃঙ্খলা বিনষ্ট করা উচিত নয়। আহমদী মুসলমানদের প্রতিবাদের ভাষা ভিন্ন; আমাদের উচিত মহানবী (সা.)-এর সত্যিকার শিক্ষা ও আদর্শ বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরা আর তাঁর পতাকাতলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে এই পৃথিবীকে শান্তিধামে পরিণত করার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া।; হুযূর বলেন; যাদের স্বভাব নোংরা আর যারা কটুভাষী তারা দেশে ও সমাজে নৈরাজ্য সৃষ্টি ছাড়া আর কিছুই করতে পারে না। এরা হঠকারীতার কারণে খোদার হাতে অবশ্যই ধৃত হবে। হযরত মসীহ্ মওউদ (আ.) বলেন; আমরা জঙ্গলের বিষাক্ত সাপ ও মরুভূমির হিংস্র প্রাণীর সাথে বন্ধুত্ব করতে পারি কিন্তু কোনভাবেই এমন মানুষের সাথে মিমাংসা করতে পারি না যারা খোদার পবিত্র নবীদের অসম্মান করে। তবে প্রতিবাদের নামে বিভিন্ন দূতাবাসে আক্রমন; রাষ্ট্রদূত হত্যা এবং কর্তব্যরত পুলিশের উপর আক্রমন কোনভাবেই কাম্য নয়।; ২০০৬ সালে ডেনমার্কে মহানবী (সা.)-এর বিকৃত কার্টুন ছাপানো হয়েছে; ইতিপূর্বেও এমনটি করা হয়েছে; সম্প্রতী ফান্সের কোন একটি পত্রিকাও এই অপকর্ম করেছে আর আগামীতেও এরা তাদের ঘৃণ্য অপকর্ম করতেই থাকবে। এরা ব্যক্তি স্বাধীনতা ও বাক স্বাধীনতার নামে অন্যের ধর্মানুভূতিতে আঘাত হানতে পারে না; কারো আবেগ নিয়ে ছিনিমিনি খেলার অধিকার কারো নেই। মুসলমানরা বিশ্বের দ্বিতীয় সংখ্যা গরীষ্ঠ ধর্মীয় সম্প্রদায়। অনেক মুসলামন দেশ আছে; আর তাদের কাছে প্রাকৃতিক সম্পদও আছে। তারা যদি জোটবদ্ধ হয় তাহলে বিশ্বের কোন দেশ মুসলমান ও আমাদের প্রিয় নবী (সা.)-কে নিয়ে এমন হাসি ঠাট্টা করার ধৃষ্টতা দেখাতে পারে না। জাতিসংঘের উচিত যারা এমন অপকর্ম করে তাদের ব্যাপার ব্যবস্থা নেয়া; কেননা যারা এমনটি করে তারা মূলতঃ স্বদেশের শান্তি শৃঙ্খলাও বিনষ্ট করে।; এরপর হুযূর মহানবী (সা.)-এর জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন - যে কীভাবে তিনি ধৈর্য ধরেছেন; মানুষের সম্মান প্রতিষ্ঠা করেছেন আর মানুষের ভালবাসায় নিজের সর্বস্ব উজাড় করে দিয়েছেন। খোদার ভালবাসায় তিনি সে উদারতা ও বদান্যতা দেখিয়েছেন তার কোন তুলনা পাওয়া যায় না।; যারা এই ফিল্ম প্রস্তুত করেছে আর এতে যারা অভিনয় করেছে তারা মূলতঃ অপরাধি চক্রের সাথে জড়িত আর বিভিন্ন অশ্লীল চলচ্চিত্র নির্মাণ করাই এদের পেশা। কাজেই এদের কাছ থেকে ভালো কোন কিছু আশা করা যায় না।; আমাদের উচিত আমাদের নবীর প্রতি সর্বদা দরূদ ও সালাম প্রেরণ করা যেভাবে আল্লাহ্ তা’লা পবিত্র কুরআনে বলেছেন; নিশ্চয় আল্লাহ্ ও এ নবীর প্রতি রহমত পাঠান এবং তাঁর ফিরিশতারাও এই নবীর জন্য দোয়া করে। হে যারা ঈমান এনেছ! তোমরাও তাঁর প্রতি দরূদ এবং অনেক সালাম পাঠাও। যারা আল্লাহ্ ও তাঁর রসূলকে কষ্ট দেয় নিশ্চয় আল্লাহ্ ইহকালেও এবং পরকালেও তাদেরকে অভিসম্পাত করেছেন। আর তিনি তাদের জন্য লাঞ্ছনাজনক আযাব প্রস্তুত করে রেখেছেন।; অতএব যারা খোদার রসূলের অবমাননা করে তাদের সাথে খোদা স্বয়ং বুঝাপড়া করবেন।; হুযূর বলেন; দয়ার সাগর ছিলেন আমাদের নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ছিলেন। বদান্যতা; উদারতা; ধৈর্য ও উন্নত নৈতিক গুণে তিনি সমৃদ্ধ ছিলেন। আপন-পর সবার আশ্রয়দাতা ও বিপদের বন্ধু ছিলেন তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে যারা আপত্তি করে তারা মূলতঃ ইতিহাস ও ইসলামী শিক্ষা থেকে পুরোপুরি অনবহিত ও অজ্ঞ। এরা যদি এসব ঘৃণ্য ও জঘণ্য অপকর্ম পরিত্যাগ না করে তাহলে খোদার কঠোর শাস্তি এড়াতে পারবে না।; এরপর হুযূর হযরত মসীহ্ মওউদ (আ.)-এর উদ্ধৃতির আলোকে আসন্ন ভয়াবহ বিপদাবলীর উল্লেখ করেন এবং এত্থেকে বিশ্বাসীর মুক্তি কামনা করেন। আল্লাহ্ তা’লা আমাদের সবাইকে স্ব-স্ব দায়িত্ব পালনের তৌফিক দিন।

 

What people are saying - Write a review

We haven't found any reviews in the usual places.

Selected pages

Common terms and phrases

অতএব অথবা অনেক অন্যায় আইন আছে আজ আপত্তি আমরা আমাদের আমার আমি আয়াত আর আরো আল্লাহ তা'লা উচিত এই এক একজন একটি একথা এটি এদের এবং এমন এর এরপর এরা এশিয়া এসব ওহী কথা করছে করতে করা করার করুন করে করেছেন করেন কাছে কাজ কারণে কি কিন্তু কুরআন কেননা কোন ক্ষেত্রে খোদা ছিল জঘন্য জন্য জাতিসংঘের তা তাকে তাদের তার তারা তাহলে তিনি তুলে তোমরা তোমাদের থাকে থেকে দরূদ দিয়ে দৃষ্টি দেয়া দেশে ধরনের নয় না নি নিজ নিজেদের নিয়ে নেই নোংরা পক্ষ থেকে পবিত্র পর পারে পৃথিবীতে পৃষ্ঠা প্রতি প্রতিক্রিয়া প্রেরণ বড় বরং বর্ণনা বলতে বলা বলে বলেছেন বলেন বা বাক-স্বাধীনতার বিভিন্ন বিরুদ্ধে বেশি মওউদ আ মত মনে মহানবী সা মহানবী সা.)-এর মাঝে মাধ্যমে মানুষের মুসলমান মুসলমানদের মুসলমানরা যদি যা যাবে যায় যার যারা যে যেন রসূল শান্তি শিক্ষা সম্মান সাথে সাহাবী সূরা সে সেই স্বয়ং হচ্ছে হতে হবে হয় হযরত মসীহ্ মওউদ হয়ে হয়েছে হলো হাদীস হুযুর

Bibliographic information